ব্রেকিং নিউজ

চুয়েট প্রিমিয়ার লীগে চ্যাম্পিয়ান যন্ত্রকৌশল’১৫ ব্যাচ


রকিবুল ইসলাম মুন্নাঃ চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) শারীরিক শিক্ষা বিভাগ ও চুয়েট ক্রীড়া সংঘ কর্তৃক আয়োজিত ‘চুয়েট প্রিমিয়াম লিগ (সিপিএল)-২০১৮’ এর ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে শিক্ষক একাদশ বনাম যন্ত্রকৌশল’১৫ এর মধ্যকার ম্যাচটিতে শিক্ষক একাদশকে ৮ উইকেটের বিশাল ব্যাবধানে পরাজিত করে যন্ত্রকৌশল’১৫ শিরোপার আনন্দে মেতে উঠে। মোট ২০টি দলের অংশগ্রহনে অনুষ্ঠিতব্য এই টুর্ণামেন্টে সর্বমোট ৫৩টি খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

মঙ্গলবার বিকালে আম্পায়ার ও দুই দলের অধিনায়কের উপস্থিতিতে প্রথমে টস অনুষ্ঠিত হয়। শিক্ষক একাদশের অধিনায়ক মইনুল ইসলাম টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন। ব্যাটিং টিমের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান দেখেশুনে খেলা শুরু করেন। ফিল্ডিং টিমের বাজে ফিল্ডিংয়ের বদৌলতে জীবন পেয়েই অনিমেষ রায় বোলারদের উপর চড়াও হতে শুরু করেন। ফলে প্রথম পাঁচ ওভারেই শিক্ষক একাদশের স্কোরবোর্ডে পঞ্চাশ ছুঁই রান উঠে। এর পর থেকেই বোলাররা সঠিক লাইন ও লেন্থে বল করে ব্যাটসম্যানদের চেপে ধরেন। বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং ও ব্যাটসম্যানদের সঠিক ব্যাটে বলে সংযুক্তির অভাবে চৌদ্দ ওভার শেষে শিক্ষক একাদশ ৩ উইকেটে ৯৪ রান করতে সমর্থ হন।

৯৫ রানের জবাবে খেলতে নেমে শুরুতেই ২ উইকেট হারিয়ে যন্ত্রকৌশল’১৫ কিছুটা চাপে পড়ে যায়। পরে ক্রিজে থাকা বাকি দুই ব্যাটসম্যান দলের হাল ধরে দুই ওভার হাতে রেখে দলকে জয়ের বন্দরে পৌছে দেন। ব্যাটিং দলের অধিনায়ক তানজিম অধিনায়োকোচিত ৩৭ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন। যন্ত্রকৌশলের রাজ্জাক যখন ছয়ের মাধ্যমে জয়সূচক রান পূর্ণ করে তখন মাঠের বাইরে থাকা খেলোয়াড় ও সমর্থকেরা বিজয় উল্লাস করে দৌড়ে মাঠে প্রবেশ করে প্রাণবন্ত স্লোগান ও উৎসবে মেতে উঠে। তখন মুহূর্তে মাঠ যেন উৎসবের মধ্যমনি হয়ে উঠে।

উক্ত খেলায় অনবদ্য অবদানের জন্য যন্ত্রকৌশল-১৫ এর তানজিম ম্যাচসেরার পুরস্কার ও একই দলের আব্দুর রাজ্জাক পুরো টুর্ণামেন্টে ভাল খেলার ফলস্বরুপ টুর্ণামেন্ট সেরার পুরস্কার পান। টুর্ণামেন্টে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের খেতাব অর্জন করেন কম্পিউটার প্রকৌশল’১৪ দল এর রাশেদ পারভেজ এবং ইলেক্ট্রনিক ও টেলিযোগাযোগ’১৪ দলের আরাফাত রাকিন সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির খেতাব অর্জন করেন।

উক্ত খেলায় প্রধান অতিধি হিসেবে উপস্থিত থেকে খেলা উপভোগ করেন অত্র বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আমিন। তাছাড়া শহীদ তারেক হুদা হল প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আব্দুর রশিদ, ছাত্রকল্যান পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক, যন্ত্রকৌশল বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দিন আহমেদ, উপছাত্রকল্যান পরিচালক অধ্যাপক ড. জি. এম সাদিকুল ইসলাম সহ আরও অনেকে সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

উপছাত্রকল্যান পরিচালক সাদিকুল ইসলাম তার শুভেচ্ছা বক্তব্যে খেলা সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে সমাপ্ত করার জন্য শারীরিক শিক্ষা বিভাগ ও চুয়েট ক্রীড়া সংঘকে ধন্যবাদ জানান। তিনি মাদকমুক্ত ক্যাম্পাসের জন্য আরও বেশি বেশি ক্রীড়া টুর্ণামেন্ট আয়োজনের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

এতে নবগঠিত চুয়েট ক্রীড়া সংঘের পক্ষ থেকে তড়িৎকৌশল বিভাগের ছাত্র মাহফুজ আলম অত্যন্ত গোছালো ও কার্যকরী বক্তব্য রাখেন। তিনি উপাচার্যের কাছে খেলায় চুয়েট ক্রীড়া সংঘের অবদান ও আরও প্রয়োজনীয় বিভিন্ন দাবি দাওয়া তুলে ধরেন।

পরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রফিকুল আলম বলেন, খেলা বেশ উপভোগ্য হয়েছে, তিনি বিজয়ী, বিজিত উভয় দলকে অভিনন্দন জানান। তাছাড়াও তিনি টুর্ণামেন্টের অন্য সকল দল ও খেলোয়াড়দের ধন্যবাদ জানান, খেলা পরিচালনার জন্য শারীরিক শিক্ষা বিভাগ ও চুয়েট ক্রীড়া সংঘকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান। চুয়েটকে মাদক ও র‌্যাগিংমুক্ত করতে খেলার বিকল্প কিছু নেই বলে তিনি মনে করেন এবং সকলকে সদলবলে মাঠে আসা ও খেলায় অংশগ্রহনের জন্য অনুরোধ করেন।

অতঃপর অতিথিরা বিজয়ী ও বিজিত দল সহ পুরস্কার প্রাপ্ত বাকি সকলের হাতে একে একে পুরস্কার তুলে দেন। ছাত্রকল্যান পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক সমাপনী ও পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

তারিখঃ ১৬/০৫/২০১৮ ইং।