ব্রেকিং নিউজ

চুয়েট গেট সংলগ্ন এলাকায় আবর্জনার স্তুপ

All-focus

চুয়েটনিউজ২৪ডেস্কঃ

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) প্রধান ফটকের সামনে থেকে বঙ্গবন্ধু হলের সীমানা দেয়াল পর্যন্ত সড়ক ও ফুটপাতের মধ্যবর্তী স্থান দিন দিন আবর্জনার স্তুপে পরিণত হচ্ছে। এর ফলে মারাত্নক দুর্ভোগে পড়েছেন হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা।

ময়লা আবর্জনা শুধু দূর্গন্ধই ছড়াচ্ছে না বরং মশার আবাস ও জন্মস্থল হিসেবে কাজ করছে।এর পরিপ্রেক্ষিতে বঙ্গবন্ধু হলে দিন দিন বাড়ছে মশার উপদ্রব। প্রকট গন্ধ এবং মশার কারনে হলের বি ব্লকের শিক্ষার্থীরা উত্তর দিকের জানালা গুলোও খুলতে পারছে না। তাছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক হতে পাহাড়তলী অভিমুখী ফুটপাথটি আবর্জনার কারনে দিন দিন হাটার অনুপযোগী হয়ে উঠছে।

All-focus

তড়িৎ কৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী নাজমুল হাসান বলেন, দিন দিন আবর্জনার স্তুপ যেভাবে বাড়ছে আমাদের পক্ষে জানালাগুলো খোলা রাখাই সম্ভব হচ্ছে না।তাছাড়া মশার উপদ্রবে আমাদের দীর্ঘ সময় কয়েল জ্বালিয়ে রাখতে হচ্ছে। যাদের শ্বাসকষ্টের সমস্যা তাদের জন্য কয়েল জ্বালানো কিংবা স্প্রে ব্যাবহার করাটা খুব পীড়াদায়ক ।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক সংলগ্ন হোটেল ও দোকানের লোকেরাই রাতের অন্ধকারে সেখানে আবর্জনা ফেলে যান। চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, রাতে খেতে বের হলে দেখা যায় কিছু লোক মাঝে মধ্যে বস্তাভর্তি আবর্জনা বিশ্ববিদ্যালয় মূল ফটক সংলগ্ন এলাকায় ফেলে যাচ্ছে। অবশ্য হোটেল মালিকগনের সাথে কথা বললে তারা এ অভিযোগ অস্বীকার করেন।

All-focus

এ ব্যাপারে চুয়েট ছাত্রকল্যাণ উপ পরিচালক মোহাম্মদ তারেকুল আলম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের গেট সংলগ্ন এলাকায় আবর্জনা ফেলা কোনভাবেই কাম্য নয়। আমরা বিষয়টি অবগত হয়েছি। শীঘ্রই এলাকার চেয়ারম্যানের সাথে বসে এ ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশবাদী সংগঠন গ্রিন ফর পিসের উদ্যোগে প্রধান ফটক থেকে বঙ্গবন্ধু হল পর্যন্ত রাস্তার ডান পাশে বনায়ন করা হয়। কিন্তু কাপ্তাই মহাসড়ক পার্শ্বে বর্ধিত করায় গাছগুলো কাটা পড়ে যায়। ফলে কিছু শূন্য জায়গা তৈরী হয়।

S.T.H 19/3/19