ব্রেকিং নিউজ

চুয়েটে প্রথমবারের মত ছায়া জাতিসংঘ অধিবেশনের সফল সমাপ্তি

মনির হোসেন:

“ট্যাকেলিং দ্যা ক্রাইসিস এন্ড রিস্টোরিং দ্যা পিস” এই প্রতিপাদ্য সামনে নিয়ে প্রথমবারের মত প্রাণবন্ত ও উদ্দীপনার সাথে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) অন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় ছায়া জাতিসংঘের অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ৮ ও ৯ নভেম্বর দুইদিনব্যাপী প্রায় ১২০ জন প্রতিযোগীদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে উক্ত প্রতিযোগিতা সম্পন্ন হয়। পুরো প্রতিযোগিতা চারটি আলাদা আলাদা কমিটিতে বিভক্ত থাকে। কমিটি সমূহের বিচারক হিসেবে সিইউইটি এমইউএন ক্লাবের সদস্যরা সহ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম ভ্যাটেরিনারি এন্ড এনিমেল সাইন্স বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় এবং এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ ওমেন্স চিটাগাং এর ছায়া জাতিসংঘের পরিচিত মুখেরা উপস্থিত ছিলেন।

গত ৮ নভেম্বর উক্ত অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্ল্যানারি সেশন অনুষ্ঠিত হয়। এতে নেতৃত্ব দেন চুয়েটের তড়িৎ ও ইলেক্ট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী কায়সার আহমেদ এবং পুরকৌশল বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী সিফাত রহমান। প্রতিযোগিদের অংশগ্রহণে সমস্ত কমিটির বিচারকদের সাথে সকলের পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়। একই সাথে কমিটির এজেন্ডা এবং এজেন্ডা বাস্তবায়নে করনীয় সম্পর্কে প্রতিযোগিদের বিস্তারিত দিকনির্দেশনা দেয়া হয়।

ইউনাইটেড ন্যাশন্স এনভায়রনমেন্ট প্রোগ্রাম (ইউএনইপি) কমিটিতে এবারের এজেন্ডা দেয়া হয় বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সমস্যা বিশ্ব উষ্ণায়ন সম্পর্কে সবাইকে সচেতন ও আমাজান বন সংরক্ষণ সম্পর্কে সবার অংশগ্রহণ মূলক সমাধান। উক্ত কমিটির সভাপতি হিসেবে ছিলেন চুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের মোঃ জোবায়ের হোসেন তাকি। আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়ারিস আজিজ আকাশ এবং চট্টগ্রাম ভ্যাটেনারি এন্ড এনিমেল সাইন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের রাহনুমা তাসনিম চারু। উক্ত কমিটিতে মোট ৩০ টি দেশের আলোকে ৩০ জন প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। তাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহনে দুই দিন প্রানবন্ত একটি কমিটি সেশন উপহার দেয়া হয়।

ইউনাইটেড ন্যাশন্স সিকিউরিটি কাউন্সিল (ইউএনএসসি) কমিটিতে এবারের এজেন্ডা ছিলেন আন্তর্জাতিকভাবে বহুল আলোচিত ঘটনা “কাশ্মীর সমস্যা সমাধান”। উক্ত কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মাহতাব উদ্দিন আহমেদ। আরো ছিলেন চুয়েটের ইলেকট্রনিক্স এন্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের নবনীতা সাহা এবং ইশরাক আহমেদ। উক্ত কমিটিতে ৩৫ টি দেশের আলোকে ৩৫ জন অংশগ্রহণকারী কমিটি সেশনে উপস্থিত ছিলেন।

এবার বিশেষ কমিটি হিসেবে বাংলাদেশ সংসদীয় কমিটি দেয়া হয় এবং সেখানে আলোচ্চ বিষয় থাকে বাংলাদেশের বর্তমান ছাত্র রাজনীতি। উক্ত কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন চুয়েটের তড়িং ও ইলেক্ট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের শাকিল আহমেদ ইকবাল এবং কম্পিউটার কৌশল বিভাগের আল জিয়ান। উক্ত কমিটিতে মোট অংশগ্রহণকারী সংখ্যা ছিল ৩৫ জন।

চতুর্থ ও শেষ কমিটি হিসেবে ইন্টারন্যাশনাল প্রেস, আইপি গঠিত হয়। উক্ত কমিটির সম্পাদক হিসেবে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ ওমেনস চিটাগাং এর রুবাইয়াৎ জাহান সরকার ও সহ-সম্পাদক হিসেবে চুয়েটের পেট্রোলিয়াম এন্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সুনান মাশরুর মিকদাত দায়িত্ব পালন করেন। উক্ত কমিটিতে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের আলোকে ১৫ জন প্রতিবেদকদের বিভিন্ন কমিটির খবর সংগ্রহের দায়িত্ব দেয়া হয়।

৯ তারিখ বিকেলে সকল কমিটি সেশন শেষে, ক্লোজিং প্ল্যানারি অধিবেশন এবং প্রাণবন্ত পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দুইদিন ব্যাপি অনুষ্ঠিতব্য আন্তর্জাতিক ছায়া জাতিসংঘের অধিবেশরনর সফল সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে সর্বাত্মক সহোযোগিতায় স্পনসর হিসেবে “এক্সক্লুসিভ প্রপার্টি ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড”, স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার “ইয়ুথ ফর চেঞ্জ ” ভূমিকা পালন করে।

তাঃ ১২/১১/২০১৯