ব্রেকিং নিউজ

চুয়েটে জমজমাট আয়োজনে ইটিই ডে উদযাপিত

DSC_9567

রকিবুল ইসলাম মুন্নাঃ

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে(চুয়েট) ইলেক্ট্রনিক্স ও টেলিযোগাযোগ কৌশল (ইটিই) বিভাগের আয়োজনে জাঁকজমকর্পূণভাবে সমাপ্ত হয়েছে ‘ইটিই ডে ২০১৮’। দুইদিন ব্যাপী এই উৎসবের শুরু হয়েছিল গত শনিবার।

আজ রোববার সকালে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় উৎসবের দ্বিতীয় দিনের কর্মসূচি শুরু হয়। এতে বিভিন্ন অনুষদের ডীন, বিভাগীয় প্রধানগণ অংশগ্রহণ করেন। এ সময় রঙ-বেরঙের ফেস্টুন-ব্যানার হাতে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করেন।

শোভাযাত্রা শেষে চুয়েট কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে দিবসটির আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন ইটিই বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আহসান উল্লাহ। এতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তড়িৎ ও কম্পিউটার কৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. কৌশিক দেব, তড়িৎ ও ইলেক্ট্রনিক কৌশল (ইইই) বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. কাজী দেলোয়ার হোসেন এবং ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক । অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ইটিই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোঃ আজাদ হোসেন।

পরে দিবসটি উপলক্ষে “রিসেন্ট ট্রেন্ডস ইন টেলিকমিউনিকেশন” শীর্ষক একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে রিসোর্স পারসন ছিলেন গ্রামীনফোনের টিম ম্যানেজার (চট্টগ্রাম) প্রকৌশলী সুমন কান্তি দাশ, রবি আজিয়াটা লিমিটেডের কোর নেটওয়ার্ক অপারেশনের প্রধান জনাব মোঃ আবদুস সবুর শান্ত এবং ফিলিপ্স হেল্থ সিস্টেম বাংলাদেশের সহকারী ম্যানেজার প্রকৌশলী খন্দকার শোয়েব মাহমুদ।

দিবসটির অন্যান্য কর্মসূচীর মধ্যে ছিল-পোস্টার প্রেজেন্টেশন ও প্রজেক্ট শো প্রতিযোগিতা। সন্ধ্যায় শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও কনসার্টের মধ্য দিয়ে আয়োজনটি সমাপ্ত হয়।

এর আগে গতকাল দিবসটি উপলক্ষে অলিম্পিয়াড ও ওয়ার্কশপের আয়োজন করা হয়। ইটিই’র বর্তমান ও সাবেকদের একসুতোয় গাঁথতে আয়োজন করা হয় পুনর্মিলনীর। সাবেকরা এতে যোগ দিয়ে পুরনো দিনের স্মৃতি রোমন্থন করেন। পরে সন্ধায় চুয়েট বাস্কেটবল গ্রাউন্ডে আতশবাজির চোখধাঁধানো প্রদর্শনী ঘটে। উৎসবকে ঘিরে ক্যাম্পাসকে মুগ্ধতা জাগানিয়া আলোকসজ্জায় সাজানো হয়। সন্ধার চুয়েট যেন নতুনসাঁজে আবির্ভূত হয়।

ইটিই ডে উপলক্ষে নিজের সার্বিক অনুভূতি জানাতে গিয়ে ইটিই’র তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আফনান আকাশ বলেন,উৎসবটি পুরো ডিপার্টমেন্টের সাবেক ও বর্তমানদের অন্যরকম এক মিলনমেলায় পরিণত হয়েছিল। এই পরিবারের একজন হতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান বলে মনে করছি। আশা করছি ভবিষ্যতেও ইটিই পরিবারের অটুট বন্ধনের এ ধারা অব্যাহত থাকবে।

তারিখঃ ১১/০২/২০১৮ ইং