ব্রেকিং নিউজ

কাল সমাবর্তন চুয়েটে, ২২৩১ জন শিক্ষার্থী সনদ পাবেন

মনির হোসেন:

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) ৪র্থ সমাবর্তন আগামীকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ২ হাজার ১৪৮ জন গ্র্যাজুয়েট এবং ৮৩ জন পোস্ট-গ্র্যাজুয়েটসহ মোট প্রায় ২ হাজার ২৩১ জন ছাত্র-ছাত্রীদেরকে সমাবর্তন ডিগ্রী প্রদান করা হবে।

ইতিমধ্যে সমাবর্তনে অংশ নিতে আসা সাবেক শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে মুখরিত হয়ে উঠছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গন। ২০১২সালের অক্টোম্বর থেকে ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক, স্নাতকোত্তর ও পিএইডি ডিগ্রী অর্জনকারীরা সমাবর্তনে অংশ নেবেন।

সমাবর্তন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি এবং চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মোঃ আবদুল হামিদ। এতে সমাবর্তন বক্তা হিসেবে থাকবেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. এ.কে. আজাদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, এম.পি বৃন্দ, মাননীয় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, এম.পি বৃন্দ এবং বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সভাপতি অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ। সমাবর্তন অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখবেন চুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম।

এবারের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে গত চার বছরের সর্বোচ্চ সিজিপিএধারী ৪ জনকে “বিশ্ববিদ্যালয় স্বর্ণপদক” প্রদান করা হবে। তারা হলেন- ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে পাসকৃত তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক কৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী ই.এম.কে. ইকবাল আহামেদ, একই বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে পাসকৃত শিক্ষার্থী রুবায়া আফসার, ২০১৬-১৭ শিক্ষাবষে পাসকৃত শিক্ষার্থী সঞ্চয় বড়–য়া এবং ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে পাসকৃত কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী মোঃ রাশেদুর রহমান।

সমাবর্তন উপলক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের প্রস্তুতি একেবারেই শেষ পর্যায়ে। অনুষ্ঠানের সভাপতি রাষ্ট্রপতি এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মোঃ আবদুল হামিদ এবং গ্র্যাজুয়েটদের বরণ করে নিতে বিশ্ববিদ্যালয়কে কয়েকদিন আগে থেকেই বর্ণিল রুপে সাজিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন পয়েন্টে বিভিন্ন আলোকসজ্জা শোভা পাচ্ছে। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীসহ ক্যাম্পাসের আনাচে কানাচে যেন উৎসবের আমেজ বিরাজমান।

সমাবর্তন উপলক্ষে নির্ধারিত সময়ের আগেই অনুষ্ঠানের সব প্রস্তুতি শেষ করতে ব্যস্ত সময় পার করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা। চট্টগ্রাম নগরী হতে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত ব্যাপক শোভাবর্ধনের কাজ করা হয়েছে।

বুধবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে সমাবর্তন অনুষ্ঠানের মঞ্চ নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ।

সমাবর্তন ঘিরে ক্যাম্পাসের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা বেশ জোরদার করা হয়েছে। এসএসএফ ( স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স), পুলিশ, র্যা ব, গোয়েন্দা বাহিনীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সর্তকাবস্থানে রয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে বহিরাগত প্রবেশে বিধি-নিষেধ করা হচ্ছে। অনুষ্ঠানের দিন ক্যাম্পাসজুড়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে থাকবে।

তা: ৪/১২/২০১৯