ব্রেকিং নিউজ

আর্টসেল,ব্ল্যাক,আরবো ভাইরাস মাতাবে চুয়েট

রং উৎসবে মাতোয়ারা কিছু চুয়েট শিক্ষার্থী

রং উৎসবে মাতোয়ারা কিছু চুয়েট শিক্ষার্থী

র‌্যালিতে অংশ নেয়া শিক্ষক শিক্ষার্থীদের একাংশ

র‌্যালিতে অংশ নেয়া শিক্ষক শিক্ষার্থীদের একাংশ

কেককেটে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি চুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. জাহাঙ্গীর আলম

কেককেটে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি চুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. জাহাঙ্গীর আলম

রাকিবুল হাসান রাকিব

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযু্‌ক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) গোলচত্বর,রাস্তা,ক্যান্টিন যেখানেই যান না কেন চোখে পড়বে শুধু রংয়ের ছড়াছড়ি। থাকবেই না কেন বলুন?  চুয়েটে ২০১১ সালে শিক্ষাজীবন শুরু করা ব্যাচের প্রায় ছয়শো শিক্ষার্থীর চোখে এখন রঙিন স্বপ্ন। সেই স্বপ্নের বাস্তব রূপ দিতে গিয়েই তারা গত বুধবার রাঙিয়ে দিয়েছে পুরো ক্যাম্পাস ।
বিশ্ববিদ্যালয়টির ৪১তম ব্যাচের শিক্ষাজীবন সমাপনী অনুষ্ঠানের প্রথম দিন ছিলো গত বুধবার। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্তিত থেকে কেক কেটে অনুষ্ঠানমালার সূচনা করেন চুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: জাহাঙ্গীর আলম। এরপর ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয় উৎসবমুখর বণার্ঢ্য র‌্যালি। অনুষ্ঠানে আরো উপস্তিত ছিলেন চুয়েট উপ-উপাচার্য  অধ্যাপক মোহাম্মদ রফিকুল আলম, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী, ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. আশুতোষ সাহা, র‌্যাগ কমিটির প্রধান আহ্বায়ক এ.বি.এম. সাজ্জাদ হোসাইন শাওন সহ চুয়েট পরিবারের বিপুল সদস্য। এ সময় চুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক  ড. মো: জাহাঙ্গীর আলম চুয়েট থেকে পাস করা নবীন প্রকৌশলীদের সবসময় চুয়েট পরিবারের শুভাকাঙ্খী হিসেবে এই প্রতিষ্ঠানের সাথে নিবিড় সম্পর্ক বজায় রাখার আহ্বান জানান। যাতে তাদের মাধ্যমে দেশে-বিদেশে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ও মর্যাদা আরো বৃদ্ধি পায়। একই সঙ্গে চুয়েট কর্তৃপক্ষও সার্বিক সহযোগিতার মাধ্যমে তাদের পাশে থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি ৪১ তম ব্যাচের সকল শিক্ষার্থীর সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।
ক্যাম্পাসের পাশাপাশি চট্টগ্রাম শহরে এক শোভাযাত্রাও করেন বিদায়ী ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। পরে বুধবার বিকাল তিনটা থেকে শিক্ষার্থীরা রং উৎসবে মেতে উঠেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের চারটি বাসে শিক্ষার্থীরা চট্টগ্রাম ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটের উদ্দেশ্যে রওনা হন দুপুর বারটায়। শহরের শোভাযাত্রা শেষে বিকাল চারটায় ক্যাম্পাসে ফেরার সাথে সাথেই শুরু হয় স্ট্রিট ড্যান্স এবং রং উৎসব । গতকাল বৃহস্পতিবার ছিলো আয়োজনের দ্বিতীয় দিন।  জব ফেয়ার এবং সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় সাজানো ছিলো গত দিনের কার্যক্রম।
আর অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ আজ শুক্রবার কনসার্টে চুয়েট মাতাতে আসছে আর্টসেল, ব্ল্যাক, আরবো ভাইরাস সহ মোট সতেরোটি ব্যান্ড । রাতব্যাপী বনসার্টের মধ্যে দিয়েই শেষ হবে চুয়েটের বৃহত্তম এ আয়োজনের ।ইতিমধ্যেই সব প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। অনুষ্ঠান আয়োজন সম্পর্কে আয়োজক কমিটির প্রধান আহ্বায়ক এবিএম সাজ্জাদ হোসেন শাওন বলেন,‘ আমারা বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের শেষ প্রান্তে এসেও যে পারস্পারিক বন্ধন দেখিয়েছি আশা করি আজীবন তা অটুট থাকবে।’

তারখি : ১৫/৫/২০১৫